1. admin@protidinershikkha.com : admin :
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১০:৫৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
শিক্ষকদের অবজ্ঞা করা বা তুচ্ছ ভাবা সরকারের জন্য হতে পারে বুমেরাং! শিক্ষা জাতীয়করণ সময়ের দাবী এমপিও শিক্ষকরা শুধু ফারসি ‘বে’ উপসর্গটির বিলুপ্তি চাচ্ছে! সংসদে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সমালোচনা করলেন জি.এম কাদের যশোরে করোনা রোগীদের চিকিৎসা দিতে হিমশিম খাচ্ছে হাসপাতালগুলো শিক্ষকদের প্রশংসায় ভাসছেন ৬ সংসদ সদস্য বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা বিনির্মানে শিক্ষা জাতীয়করণের অসমাপ্ত কাজ জননেত্রী শেখ হাসিনাকেই সমাপ্ত করতে হবে বিশেষ অনুদানের টাকা পাচ্ছে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শতভাগ উৎসব ভাতার দাবীতে ইতিবাচক সাড়া মেলেনি হাজীগঞ্জ মডেল সরকারি কলেজে এ্যাসাইনমেন্ট বিতরণের সময়-সূচি প্রকাশ

শিক্ষকদের প্রশংসায় ভাসছেন ৬ সংসদ সদস্য

প্রশাসন
  • সময় : শনিবার, ৩ জুলাই, ২০২১
  • ৪০৫ বার পঠিত
সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

বেসরকারি স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় কর্মরত শিক্ষকরা দীর্ঘ ১৭ বছর ধরে নাম মাত্র ২৫% উৎসব ভাতা পেয়ে আসছে। পেশাগত ক্ষেত্রে যা সীমাহীন বৈষম্য বলে অনেকেই মনে করেন। স্বাধীনতার ৫০ বছর অতিবাহিত হলেও বেসরকারি শিক্ষকদের বৈষম্য নিরসন কিংবা জাতীয়করণের জন্য এখন পর্যন্ত কোন কার্যকর পদক্ষেপ লক্ষ করা তো যায়নি, বরং রাষ্ট্রের দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের মধ্যে কিংবা জাতীয় সংসদে তা কখনও আলোচনায় ও আসেনি।

সাম্প্রতিক সময়ে দেশের কয়েকটি শিক্ষক সংগঠন একত্রিত হয়ে শিক্ষকদের জন্য শতভাগ উৎসব ভাতার জন্য বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করে। দেশের বিভিন্ন নির্বাচনী আসনের সাংসদদের হাতে শতভাগ উৎসব ভাতার দাবীতে স্মারকলিপি প্রদান কর্মসূচির একটি অন্যতম অংশ ছিলো। যার ফলশ্রুতিতে ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেট অধীবেশনে প্রায় ৬ জন সংসদ সদস্য তাঁদের বাজেট বক্তৃতায় বেসরকারি শিক্ষকদের এই ন্যায্য দাবীটি মহান সংসদের আলোচনার নিয়ে আসেন এবং একই সাথে বেসরকারি শিক্ষাকে জাতীয়করণের দাবী জানান। বেসরকারি শিক্ষকদের দীর্ঘদিনের দাবীটি মহান সংসদে আলোচিত হওয়ায় সারা দেশের শিক্ষক সমাজ ঐ সাংসদদের প্রতি ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জানানোর পাশাপাশি প্রশংসিত হয়েছেন।

২০২১-২০২২ অর্থবছরের বাজেট অধিবেশনে এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের আসন্ন ঈদুল আজহা থেকে শতভাগ উৎসব ভাতা প্রদান ও এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণের দাবি জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সংসদের বিরোধীদলীয় উপনেতা জি এম কাদের, কাজী ফিরোজ রশিদ, এম এ মতিন, আ ক ম সারওয়ার জাহান বাদশাহ, ডা. রুস্তম আলী ফরাজী ও রওশন আরা মান্নান।

সংসদ অধিবেশনে জি এম কাদের বলেন, এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের সরকারি শিক্ষকদের মতো উৎসব ভাতা, বাড়ি ভাড়া ও চিকিৎসা ভাতাসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা দেয়া হয় না। এটি পরীক্ষা করে বিবেচনার করার জন্য আমি অনুরোধ করছি।

কাজী ফিরোজ রশিদ বলেন, শিক্ষকরা দুরবস্থার মধ্যে আছেন। তারা বাইরে পড়াতে পারছেন না। তাদের আয়-রোজগার বন্ধ হয়ে় গেছে। তারা ২৫ শতাংশ বোনাস পান। করোনাকালে তাদের জন্য শতভাগ বোনাসের ব্যবস্থা করা গেলে তারা ভালো অবস্থায় থাকবেন।

শতভাগ উৎসব ভাতা প্রদান ও এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণের দাবি জানিয়ে ফিরোজ রশিদ বলেন, শিক্ষা জাতির মেরুদণ্ড, শিক্ষা জাতীয়করণ করলে দেশ ও জাতি উপকৃত হবে।

এম এ মতিন তার বক্তৃতায় ২৫ শতাংশ বোনাস বৃদ্ধির দাবি জানান। আ ক ম সরোয়ার জাহান বাদশাহ শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণের দাবি জানিয়ে বলেন, শেখ হাসিনার এই বাংলাদেশে এবং ছয় লাখ কোটি টাকারও বেশি বাজেটে শিক্ষায় কোনো বৈষম্য থাকতে পারে না। এমপিওভুক্ত শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণের দাবি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন ডা. রুস্তম আলী ফরাজী ও রওশন আরা মান্নানও।


সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা